২০১৮ খ্রিস্টাব্দে আন্তর্জাতিকভাবে তৃতীয় হয়েছিল আব্দুল মোমিনের তোলা সাতছড়ি জাতীয় উদ্যানের এই ছবিটি।

শেষ হল প্রাকৃতিক সংরক্ষিত অঞ্চলসমূহ নিয়ে ছবি তোলার আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতা ‘উইকি লাভ্‌স আর্থ ২০১৯’। ২০১৭ খ্রিস্টাব্দ থেকে প্রতিযোগিতাটি বাংলাদেশে আয়োজন করছে উইকিপিডিয়া নিয়ে কাজ করা অলাভজনক সংস্থা ‘উইকিমিডিয়া বাংলাদেশ’।

‘উইকি লাভ্‌স আর্থ’, যা সংক্ষেপে ‘ডাব্লিউএলই’ নামে পরিচিত – একটি বার্ষিক আন্তর্জাতিক ছবি তোলার প্রতিযোগিতা। প্রতিযোগিতাটি প্রতিবছর মে ও জুন মাসে বিশ্বব্যাপী অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী দেশগুলো নিজ নিজ সংরক্ষিত বনাঞ্চল ও এর জীববৈচিত্র্যের ছবি নিয়ে অংশগ্রহণ করে।

প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহণকারীরা নিজ দেশের প্রাকৃতিক ঐতিহ্যের ছবি ধারণ করে উইকিপিডিয়ার সহ-প্রকল্প এবং উন্মুক্ত ছবির ভাণ্ডার উইকিমিডিয়া কমন্সে (https://commons.wikimedia.org) আপলোড করে থাকেন।

২০১৭ খ্রিস্টাব্দে বাংলাদেশে প্রতিযোগিতাটি প্রথম অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশ চলতি বছর (২০১৯) তৃতীয়বারের মতো অংশ নেয়। ২০১৭ খ্রিস্টাব্দে আয়োজিত প্রতিযোগিতার বাংলাদেশের সংস্করণে ১৯২ জন প্রতিযোগিতায় অংশ নেয় এবং ১৩৩৯ আলোকচিত্র জমা পড়ে।

পল্লব কবিরের তোলা লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানের ভেতর রেললাইনের ছবিটি ২০১৭-এ আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ১১তম স্থান দখল করে।

২০১৮ খ্রিস্টাব্দে অংশগ্রহণকারী এবং ছবির সংখ্যা তুলনামূলক বৃদ্ধি পায়, এবং ৩৮১ জন প্রতিযোগিতায় অংশ নেয় যেখানে ২৭৯৭ আলোকচিত্র জমা পডেছিল।

উইকিমিডিয়া বাংলাদেশ স্থানীয়ভাবে প্রতিবছর মে মাসে এই প্রতিযোগিতার আয়োজন করলেও চলতি বছর প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে মে মাসের পরিবর্তে জুন মাসে প্রতিযোগিতাটি অনুষ্ঠিত হয়।

উল্লেখ্য, ২০১৭ খ্রিস্টাব্দে প্রথমবারের অংশগ্রহণে লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানের একটি ছবি সারা বিশ্বের ৩৬টি দেশের এক লাখ ৩১ হাজার ছবির সঙ্গে প্রতিযোগিতা করে ১১তম স্থান দখল করেছিল। ছবিটি তুলেছিলেন পল্লব কবির।

২০১৮ সালে ৩২টি দেশের ৯০ হাজার ছবির সঙ্গে প্রতিযোগিতা করে আন্তর্জাতিক সেরা ১৫টি ছবির মধ্যে বাংলাদেশের আব্দুল মোমিনের তোলা সাতছড়ি জাতীয় উদ্যানের একটি ছবি ৩য় ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কে তাঁর তোলা বন বাটনের অপর একটি ছবি ৮ম এবং শাহেনশাহ বাপ্পির তোলা কাঠ শালিকের একটি ছবি ১২তম স্থান লাভ করে।

২০১৮-এ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কে আব্দুল মোমিনের তোলা বন বাটনের এই ছবি আন্তর্জাতিকভাবে অষ্টম স্থান লাভ করে।

চলতি বছর আগস্ট মাসে বাংলাদেশ অংশের ফলাফল ঘোষণা করা হবে। বিজয়ী ১০টি ছবি পরবর্তীতে আন্তর্জাতিক বিচারকদের কাছে পাঠানো হবে। অংশগ্রহণকারী সব দেশ থেকে প্রাপ্ত সেরা ছবি থেকে আন্তর্জাতিকভাবে ১৫টি ছবি বিজয়ী ঘোষণা করা হবে এ বছরের শেষ দিকে।

আন্তর্জাতিকভাবে সেরা ১৫টি ছবির জন্য রয়েছে ৩০০০ হাজার ইউরো থেকে ২০০ ইউরো সমমূল্যের অ্যামাজন গিফ্ট ভাউচার, সার্টিফিকেটসহ আরও অন্যান্য পুরস্কার। আন্তর্জাতিক পুরস্কার ছাড়াও বাংলাদেশে থেকে নির্বাচিত সেরা ১০টি ছবির জন্যও রয়েছে বিভিন্ন মূল্যের গিফ্ট ভাউচার, উইকিপিডিয়ার টি-শার্ট, সার্টিফিকেটসহ বিভিন্ন পুরস্কার।

চলতি বছর (২০১৯) প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশসহ অংশগ্রহণকারী দেশের সংখ্যা ৩৭টি। আন্তর্জাতিক এ প্রতিযোগিতার বিস্তারিত আরো জানা যাবে www.wikilovesearth.org ঠিকানায়। এছাড়া উইকিমিডিয়া বাংলাদেশের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটেও (https://wikimedia.org.bd) ফলাফল ঘোষণা করা হবে।

Translate »
Share This