আর্মেনিয়ার উইকি-শ্রেণিকক্ষের একটি ছবি। ছবি: ভসকানিয়ান/সিসি-বাই-এসএ ৪.০

উন্মুক্ত বিশ্বকোষ ধারণাটিকে নতুনভাবে সংজ্ঞায়িত করেছে উইকিপিডিয়া। সম্পূর্ণ স্বেচ্ছাসেবার ভিত্তিতে গড়ে ওঠা এ বিশ্বকোষ জ্ঞানের বিশ্বস্ত মাধ্যম হিসেবে শিক্ষার বিভিন্ন খাতে অবদান রেখে চলেছে। উইকিপিডিয়ায় অবদান রাখার মাধ্যমেও কি একাডেমিক দিক থেকে উন্নতি লাভ সম্ভব? বৈশ্বিক উইকিমিডিয়া কার্যক্রম পরিচালনাকারী মূল প্রতিষ্ঠান উইকিমিডিয়া ফাউন্ডেশন এমনটাই মনে করে।

সম্প্রতি যুক্তরাজ্যের দেশ ওয়েল্‌স তাঁদের পাঠ্যসূচীতে উইকিপিডিয়ায় অবদান রাখার একটি অংশ অন্তর্ভুক্ত করেছে। এই পাঠ্যসূচী অনুযায়ী ওয়েল্‌স প্রবেশিকা পরীক্ষায় “সম্প্রদায় চ্যালেঞ্জ” নামক অংশে ওয়েল্‌স ভাষায় উইকিপিডিয়ার একটি পাতা তৈরি করতে হয়। ভাষার উন্নতিকল্পে ওয়েল্‌স সরকার-সমর্থিত কার্যক্রমের অংশ হিসেবে এটি পাঠ্যসূচীতে অন্তর্ভুক্ত হয়েছে।

সংস্থাটির যোগাযোগ সমন্বয়ক কর্মকর্তা জন লুবক এক সংবাদ মাধ্যমে বলেন, ‘প্রাসঙ্গিক ক্ষেত্রগুলোর পাঠ্যসূচীতে উইকিপিডিয়ায় অবদান রাখার উপায় অন্তর্ভুক্ত করা দরকার। উইকিপিডিয়ায় অবদান রাখার মাধ্যমে কোডিং, সম্পাদনা করা, যোগাযোগ এবং কপিরাইট প্রভৃতি সম্পর্কিত জ্ঞান বৃদ্ধি পায়। তাই উইকিপিডিয়ায় অবদান রাখা পাঠ্যসূচীতে অন্তর্ভুক্ত করা প্রয়োজন।’

মানুষ শুধু কিভাবে উইকিপিডিয়ায় লিখতে হয় এটাই শেখেন না, বরং এই দক্ষতা তাঁদেরকে নতুন উৎস সৃষ্টির পাশাপাশি মানুষের জন্য ভালো কিছুও করছে বলে জানান তিনি।

এদিকে ইউনিভার্সিটি অব এডিনবরায় পরিচালিত উইকিমিডিয়া যুক্তরাজ্যের একটি প্রকল্প হেরাল্ড হায়ার এডুকেশন অ্যাওয়ার্ডস ২০১৯-এ ‘ইনোভেটিভ ইউজ অব টেকনোলোজি অ্যাওয়ার্ড’ জিতে নেয়। ইউয়ান ম্যাক অ্যান্ড্রু, ইউনিভার্সিটি অব এডিনবরার ‘উইকিমিডিয়ান ইন রেসিডেন্স’ হিসেবে কর্মরত আছেন। ২০১৬ খ্রিস্টাব্দের জানুয়ারিতে দায়িত্বলাভের পর থেকে তিনি একাধিক উইকিমিডিয়া অনুষ্ঠান আয়োজনের মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়জুড়ে নিত্যনতুন কার্যক্রম আর প্রকল্প বাস্তবায়ন করে যাচ্ছেন।

স্নাতকোত্তর বিভাগে ওয়ার্ল্ড ক্রিশ্চিয়ানিটি, ট্রান্সলেশন স্টাডিজ, ইতিহাস, বৈশ্বিক স্বাস্থ্য, ডিজিটাল সমাজতত্ত্ব, ডাটা সায়েন্স ফর ডিজাইন, ভাষা প্রশিক্ষণ, সাইকোলজি ইন অ্যাকশন, ডিজিটাল শিক্ষা, জনস্বাস্থ্য এবং স্নাতক বিভাগে প্রজনন জীববিদ্যা বিষয়ে উইকিপিডিয়া অ্যাসাইনমেন্ট চালু করা হয়েছে।

এছাড়াও বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে উইকিমিডিয়া এডুকেশন প্রকল্প চালু আছে। জ্ঞানার্জনের পাশাপাশি জ্ঞান সৃষ্টিতে এই কার্যক্রম বেশ অবদান রাখছে বলে সংশ্লিষ্টরা জানান।

Translate »
Share This