জয়ন্ত নাথ। ছবি: Jasanpictures/সিসি-বাই-এস-এ ৪.০

জয়ন্ত নাথ অনলাইন বিশ্বকোষ উইকিপিডিয়াসহ এর সহপ্রকল্পের সাথে যুক্ত দীর্ঘ এক যুগ ধরে। বর্তমানে উইকিপিডিয়ার অন্যতম সহপ্রকল্প উইকিসংকলনেই তিনি অধিকতর সক্রিয়। সেন্টার ফর ইন্টারনেট অ্যান্ড সোসাইটির উইকিসংকলন প্রকল্প পরামর্শক হিসেবেও কর্মরত আছেন তিনি। ব্যক্তিজীবনের ব্যস্ততাসত্ত্বেও বিভিন্ন উইকিমিডিয়া প্রকল্পে তিনি কাজ করে যাচ্ছেন সক্রিয়ভাবে। বাংলা উইকিপিডিয়ার এক লক্ষ নিবন্ধ উপলক্ষে তাই অভিজ্ঞ এ উইকিমিডিয়ানের সাক্ষাৎকার নেয়া হল, যেখানে তিনি জানালেন উইকিপিডিয়া নিয়ে তাঁর আশার কথা, ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার কথা। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন অংকন ঘোষ দস্তিদার।

উইকিবার্তা: প্রথমেই উইকিবার্তার পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা। উইকিপিডিয়ার সাথে আপনার এক যুগের কাছাকাছি সময়ের সম্পর্ক। এই জগতে যুক্ত হওয়ার গল্পটা শুনতে চাই। শুরুটা কীভাবে হয়েছিল? কীভাবে উইকি জগতের প্রতি আগ্রহ তৈরি হল?

জয়ন্ত নাথ: শুরুটা ঠিক কবে কীভাবে হয়েছিল, সেটা ঠিক সঠিকভাবে আজ আর মনে পড়ে না। ২০০৭ সাল নাগাদ কোনও একটা সময়ে ইংরেজি উইকিতে আসি আর তারপরে বাংলায়। প্রথম একবছর আইপি থেকেই সম্পাদনা করতাম , ২০০৮ সালের প্রথম দিকে নিজের নামে নিবন্ধন করি।  কিন্তু প্রথম লেখা দুই লাইনের নিবন্ধটি প্রশাসক অপসারণ করে দেন। খুব কষ্ট পেয়েছিলাম। কারণ তখন বাংলা টাইপ করতে পারতাম না। অনেক কষ্টে ঐ দুইটি বাক্য লিখেছিলাম। তখন, ২০০৩ সালে  প্রকাশিত হলেও ২০০৭-০৮-এও অভ্র কীবোর্ড সফটওয়্যারটি  বাংলাদেশের মত ভারতে এতো জনপ্রিয় ছিল না, আমি উইকিতে এসেই অভ্রের কথা জেনেছি আর বাংলা টাইপ করতে শিখেছি।  তখন উইকি কী বা উইকিমিডিয়া ফাউন্ডেশন কী, কিছুই জানতাম না। কিন্তু লেখার ইচ্ছাতেই লিখে গেছি। মূলত ভারতের বিষয়গুলির উপর আমি কাজ করেছি সেই সময়। সেই সময় আমি তখনকার প্রশাসকদের অনেক সাহায্য পেয়েছি উইকিপিডিয়াকে বুঝতে। তাদের মধ্যে কয়েকজনের নাম করতেই হয়। রাগিব হাসান ভাই, বেলায়েত ভাই ও জাহিন ভাই। ছোটবেলা থেকেই আমার বিশ্বকোষের প্রতি আগ্রহ ছিল। অনেকের বাড়িতে এনসাইক্লোপিডিয়া ব্রিটানিকা সাজিয়ে রাখা দেখেছি, কিন্তু চেয়ে পড়ার সাহসও হত না, আর কেনার ক্ষমতাও ছিল না। সেই আগ্রহতেই অনলাইনে বিশ্বকোষের খোঁজ। আর তা থেকেই উইকিপিডিয়া খুঁজে পেয়েছিলাম। তারপর এটার মুক্ত চিন্তার দর্শনের প্রতি ভালবাসা। সেই থেকেই এখানে আজ প্রায় ১২ বছর কাটিয়ে দিলাম।   

উইকিবার্তা: বাংলা উইকিপিডিয়া সদ্য এক লক্ষ নিবন্ধ পূর্ণ করল। বাংলা উইকির যখন শৈশব চলছে, তখন থেকে আপনি যুক্ত এর সাথে। অনুভূতিটা কেমন?

জয়ন্ত নাথ: আমি যখন প্রবেশ করি, উইকিপিডিয়া ২০ হাজার নিবন্ধের মাইলফলক পার করে। সেই হিসাবে আজ বাংলা উইকিপিডিয়া ১ লক্ষের নিবন্ধের মাইলফলক পার করছে দেখে তো ভালোই লাগছে। তবে আগেও বলেছি, এখনও বলছি, আমাদের আরও নিবন্ধের গুণমানের দিকে নজর দেওয়া জরুরি। সাথে মৌলিক আবশ্যকীয় নিবন্ধগুলিকে উচ্চ গুণমানে শেষ করা দরকার। 

উইকিবার্তা: শুরুর পর থেকে শুধু অনলাইনেই নয়, অফলাইনেও আপনি সক্রিয়ভাবে নানাবিধ আয়োজন করেছেন, কার্যক্রম পরিচালনা করেছেন। এ নিয়ে আপনার সুদীর্ঘ অভিজ্ঞতা যদি একটু জানান আমাদের। এখন পিছনে তাকালে কেমন বোধ হয়?

জয়ন্ত নাথ: ২০০৮ সালে এসে শুধুই নিজে কাজ করতে গিয়ে উপলব্ধি করেছি, একা হবে না। আমাদের আরও স্বেচ্ছাসেবক চাই। তখন বাংলাদেশ থেকে অনেকে কাজ করলেও আমি ও অর্ণব দত্ত ছাড়া এই বাংলা থেকে প্রায় কেউ ছিল না। শুধু অনলাইনেই নয়, অফলাইনেও সক্রিয়ভাবে কর্মশালা আয়োজন করার চেষ্টা চালিয়ে গেছি গত দশ বছর। তাতে কিছু ফলও পেয়েছি। আজ আমাদের পশিমবঙ্গে পশ্চিমবঙ্গ উইকিমিডিয়ান ব্যবহারকারী দল প্রতিষ্ঠা করতে পেরেছি। গত চার বছর আমরা অনেক কাজ সফলতার সাথে করতে পেরেছি। এই পথ পার হতে আমি, আমার অনেক সহযোদ্ধাদের সাথে পেয়েছি। উইকিমিডিয়া আন্দোলন একটি সমষ্টিগত বা দলীয় আন্দোলন। এইভাবে সবাইকে পাশে না পেলে, আমরা এতদূর আসতে পারতাম না। আমাদের আরও পথ পরিক্রম করতে হবে।  অনেক ভালো উইকিপিডিয়ানদের সাথে পরিচয় হয়েছে। অনেক ভালো মানুষের সংস্পর্শে এসে অনেক কিছু শিখেছি, অনেক মত বিনিময় করেছি। বিষয়ভিত্তিক বিতর্ক করেছি। সেই বিষয়ভিত্তিক বিতর্ক আমাদের মাঝে কোনো মানসিক দূরত্ব তৈরি করেনি। ২০১৫ সালে আমাদের দুই বাংলার উইকিপিডিয়ানদের মধ্যে প্রথম দেখা-সাক্ষাৎ করার সুযোগ হয়, দুই বাংলায় অনুষ্ঠিত বাংলা উইকিপিডিয়ার দশম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠানে। পিছনের দিকে তাকালেই মনে হয়, “স্মৃতি সতত সুখের।” 

উইকিবার্তা: বাংলা উইকিপিডিয়া ধীরে ধীরে ব্যস্ত হয়ে পড়ছে, ট্রাফিক বাড়ছে। এখনো দীর্ঘ পথ অতিক্রম করা বাকি, তবুও আগের দুরবস্থার প্রকোপ অনেকটাই কম এখন। অনেকেই জানে উইকি সম্পর্কে। এর কারণ কী মনে করেন? এ ক্ষেত্রে অফলাইন কার্যক্রমের গুরুত্ব বা অবদান কতটা বলে মনে করেন?

জয়ন্ত নাথ: দুই বাংলায় অফলাইন কার্যক্রমের জন্য প্রচারণা হয়েছে, আর মানুষ আজ উইকিপিডিয়া কী নামটা অন্তত জানে। তবে আমার মনে হয়, দুই বাংলাতেই গত বছর চারেক ধরে সহজে ইন্টারনেট পাওয়া যাচ্ছে আর তার খরচ আগের তুলনায় অনেক কম। সাথে মানুষের হাতে আজ স্মার্টফোন এসে যাওয়াতে বেশ সহজেই ইন্টারনেটে প্রবেশ করতে পারছে। তার ফলে ট্রাফিক বাড়ছে বলে আমার মনে হয়।  

উইকিবার্তা: বাংলা উইকিপিডিয়া দিয়েই তো আপনার যাত্রা শুরু হয়। এখন দেখা যায় উইকিসংকলনেই আপনি অধিক সক্রিয়। বাংলা উইকিপিডিয়ায় অবদানকারীদের সংখ্যা মোটামুটি সন্তোষজনক দেখেই কি অন্য অপেক্ষাকৃত কম সক্রিয় প্রকল্পের সাথে অধিক সক্রিয় হওয়া?

জয়ন্ত নাথ: বাংলা উইকিপিডিয়া দিয়ে শুরু করে আজ সেইভাবে সেখানে সময় দিতে না পারার জন্য খারাপ লাগে। তবে আমি বর্তমানে নিয়মিত হবার চেষ্টা করছি। বিশেষত অপসারণের আলোচনায় চোখ রাখি আর সম্প্রদায়ের সিদ্ধান্ত অনুসারে দায়িত্ব নিই। উইকিসংকলনে বেশি সময় দেবার কারণ, উইকিপিডিয়ার তথ্য আহরণের জন্যই কাজ করা, সাথে অপেক্ষাকৃত কম সক্রিয় প্রকল্পের মধ্যেও এটি পড়ে। তাই তার সম্ভাবনা ও কাজ করার সুযোগও বেশি। অন্য প্রকল্পগুলির মধ্যে উইকিবই, নিজে একটি বই রচনা, একটু কঠিন কাজ বলেই মনে হয়। উইকি অভিধানের কাজ, উইকিউপাত্ত আসার পর সংকুচিত হয়েছে বলে আমার মনে হয়। উইকিভ্রমণ আরও একটি ভাল প্রকল্প আমার মতে, ভবিষ্যতে সেটাতেও কাজ করার ইচ্ছা আছে। আর উইকিপিডিয়াতে আমাকে আরো অধিক সক্রিয়ভাবেই দেখা যাবে আশা করি।  

উইকিবার্তা: পূর্বের কোনো কাঙ্ক্ষিত উইকির প্রকল্প বাস্তবায়নে কি বাধার সম্মুখীন হয়েছেন? সম্মুখীন হলে কী ধরণের বাধা? কীভাবে সমস্যার মোকাবেলা করেছেন?

জয়ন্ত নাথ: সেইভাবে কোনো সমস্যায় পড়িনি। কাঙ্ক্ষিত উইকির প্রকল্প বাস্তবায়নের মধ্যে সবথেকে বেশি সমস্যায় পড়েছিলাম বাংলা উইকিপিডিয়ার দশম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদ্‌যাপনের সময়। মূল সমস্যা ছিল, দুই আন্তর্জাতিক বাংলার মধ্যে মেলবন্ধন কীভাবে হবে, সেটা নিয়ে। তবে সবার সহযোগিতায় আমরা সেই সমস্যার সমাধান করতে পেরেছি। 

উইকিবার্তা: বাংলা উইকির উন্নতিকল্পে এই মুহূর্তেই প্রয়োজনীয় কোনো পদক্ষেপ নেয়ার কথা বলতে বললে আপনি কোন পদক্ষেপের কথা বলবেন?

জয়ন্ত নাথ: আগেও বলেছি, এখনও বলছি, আমাদের আরও নিবন্ধের গুনমানের দিকে নজর দেওয়া জরুরি। সাথে মৌলিক আবশ্যকীয় নিবন্ধগুলিকে  উচ্চ গুণমানে শেষ করা দরকার।  অনেক অনেক নিবন্ধে বানান ভুল আছে, বাক্যগঠন ঠিক নেই। পড়তে গেলে মনে হয় বাংলাকে ইংরেজি ভাষায় পড়ছি। অনেক ক্ষেত্রেই আক্ষরিক অনুবাদ বা গুগল অনুবাদে ভরে আছে। সেইগুলিকে সঠিক বাংলায় করা দরকার। সহজ কথায় গুণমানের দিকে নজর দেওয়া দরকার; নিবন্ধ কম থাকুক ক্ষতি নেই। 

উইকিবার্তা: বাংলা উইকিপিডিয়া বা এর সহপ্রকল্পগুলো নিয়ে আপনার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কী?

জয়ন্ত নাথ: উইকিসংকলন দ্বারা বাংলা উইকিপিডিয়া তথ্যসূত্র দ্বারা বর্ধিত করা আমার ভবিষ্যত পরিকল্পনার মধ্যে প্রধান কাজ হয়েই আছে, সেই কাজই আমি করে চলেছি। 

উইকিবার্তা: বৈশ্বিক উইকিতে বাংলা উইকিপিডিয়া নিয়ে আশা/নিরাশার কিছু দিক সম্পর্কে জানান আমাদের।

জয়ন্ত নাথ: ইন্টারনেট মাধ্যমে পিছিয়ে পড়া ভাষাগুলির মধ্যে বাংলা ভাষা আছে, অথচ কথিত ভাষার মধ্যে বাংলার স্থান ষষ্ঠ। সেক্ষেত্রে বাংলা ভাষার জন্য বিশেষ প্রকল্প আমি আশা করতেই পারি উইকিমিডিয়া ফাইন্ডেশনের কাছে। 

উইকিবার্তা: অবদানের মাধ্যমে আপনি শুধু নতুনই নয়, অনেক পুরাতন অবদানকারীদের নিকটও অনুপ্রেরণা। তাদের সবার উদ্দেশ্যে কিছু বলবেন?

জয়ন্ত নাথ: নতুন যারা উইকিপিডিয়াতে আসছেন তাদের শুভকামনা জানাই। আশা করবো তাদের আমাদের সঙ্গ ভাল লাগবে। অবদান রাখুন আপনার পছন্দের বিষয়ে, সেটাতে আপনার লেখার উৎসাহ থাকবে। তবে লেখার থেকে আগে পাঠক হয়ে নিবন্ধগুলি পড়ার চেষ্টা করুন, মানে পাঠক হন। বানান ভুল পেলে ঠিক করুন। কোনো বাক্য পড়ে যদি দেখেন বোধগম্যতার অভাব আছে, সেই বাক্যকে আরও সহজ ভাষায়  বোধগম্য করে লেখার চেষ্টা করুন। আমি নিজেও অনেক সময় পাঠক হিসাবেও বাংলা উইকিপিডিয়া পাঠ করে থাকি। 

উইকিবার্তা: আপনাকে ধন্যবাদ!

জয়ন্ত নাথ: তোমাকেও ধন্যবাদ।

Translate »
Share This