উইকিমিডিয়ার অন্যতম প্রকল্প উইকিউপাত্ত ২০২০ খ্রিষ্টাব্দের ২৯ অক্টোবর নবম বর্ষে পা রাখে। এর অষ্টম জন্মদিন উপলক্ষ্যে বিশ্বের বিভিন্ন অংশে ধারাবাহিক কার্যক্রমের আয়োজন করা হয়। চলমান বৈশ্বিক মহামারীর কারণে অধিকাংশ আয়োজন অনুষ্ঠিত হয় অনলাইনে।

বিশেষ এ দিন পালনে উইকিমিডিয়া বাংলাদেশ আয়োজন করে প্রথম উইকিউপাত্তের কর্মশালার। ‘উইকিউপাত্তে হাতেখড়ি’-শীর্ষক এ কর্মশালায় প্রায় ১৫জন অংশগ্রহণ করেন। উইকিউপাত্তে কিভাবে অবদান রাখা যেতে পারে, সে বিষয়ে একেবারে শুরু থেকে আলোচনা করেন কর্মশালার পরিচালক উইকিউপাত্তের প্রশাসক মাহির মোরশেদ। অষ্টম জন্মদিন উপলক্ষ্যে কর্মশালার পরবর্তীতে সপ্তাহব্যাপী চলচ্চিত্র ডাটাথন অনুষ্ঠিত হয়। এর উদ্দেশ্য ছিল বাংলা চলচ্চিত্র বিষয়ে উইকিউপাত্তে তথ্য বৃদ্ধি করা। উল্লেখ্য, উইকিপিডিয়ার মত এখানেও যে-কেউ অবদান রাখতে পারেন আর বিভিন্ন তথ্য যোগ করে সমৃদ্ধ করে তুলতে পারেন। প্রায় ৯জন এ ডাটাথনে অংশগ্রহণ করেন, যাদের উইকিমিডিয়া বাংলাদেশের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছাস্মারক হিসেবে ই-সনদপত্র প্রদান করা হবে। আয়োজনের বিস্তারিত পাওয়া যাবে এখানে

২০১২ খ্রিষ্টাব্দের ২৯ অক্টোবর উইকিমিডিয়া ফাউন্ডেশন নতুন প্রকল্প হিসেবে উইকিউপাত্ত (ইংরেজিতে উইকিডেটা) চালু করে। এটা মূলত উন্মুক্ত তথ্যের এক বিশাল ভাণ্ডার। বিভিন্ন ভাষাভাষীর উইকির আন্তঃসংযোগ উইকিউপাত্তের মাধ্যমেই হয়ে থাকে। শুরুর পর থেকেই ভীষণ জনপ্রিয় হয়ে ওঠে এই প্রকল্পটি। অ্যালেন ইনস্টিটিউট ফর আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স, গর্ড অ্যান্ড বেটি মুর ফাউন্ডেশন, গুগল প্রভৃতি সংস্থাসমূহের অর্থায়নে শুরু থেকেই উইকিমিডিয়া ডয়েচল্যান্ড প্রকল্পটির উন্নয়নের মূল কাজটি করে চলছে।

Translate »
Share This