উইকিপিডিয়ার ভাস্কর্য (ছবি: חזרתי, সিসি-বাই-এসএ ৪.০)

ইন্টারনেট আর্কাইভ ঘোষণা করেছে যে তারা উইকিপিডিয়ার সাথে একটি অংশীদারীমূলক সহযোগিতা করবে যার আওতায় উইকিপিডিয়ার বইভিত্তিক তথ্যসূত্র ইন্টারনেট আর্কাইভের বিদ্যমান লাইব্রেরিতে যুক্ত করা হবে। ভবিষ্যতে কোনো ব্যবহারকারী ইন্টারনেট আর্কাইভের কোনো পৃষ্ঠাতে তথ্যসূত্র দেখতে চাইলে মূল বইয়ের অনুলিপি দেখতে পারবেন। 

ইন্টারনেট আর্কাইভ এবং উইকিপিডিয়া উভয়ে মিলে ১,৩০,০০০ তথ্যসূত্র পরস্পরের সাইটে যুক্ত করবে। ইন্টারনেট আর্কাইভের বিদ্যমান ভান্ডারে ৫০,০০০ বইয়ের সংগ্রহ রয়েছে। কোনো ব্যবহারকারী তথ্যসূত্রের লিঙ্কে ক্লিক করলে আর্কাইভের মূল পৃষ্ঠার একটি অনুলিপি দেখতে পাবেন। এছাড়া তিনি চাইলে মূল বইটিও দেখতে পাবেন। 

ইন্টারনেট আর্কাইভ মূলত বিভিন্ন বইয়ের ডিজিটার সংগ্রহশালা। কোনো দাতা চাইলে বই দান করতে পারেন, তখন বইটি স্ক্যান করে করে লাইব্রেরিতে যুক্ত করা হয়। কেউ উইকিপিডিয়া থেকে যুক্ত করা লিঙ্ক-এর কোনো বই দেখতে চাইলে সেটির প্রাকদর্শন দেখতে পাবেন। তবে সেই বইটি ধার করে পড়তে চাইলে টাকা দিতে হয়।

আর্কাইভের ডিজিটাল লাইব্রেরিয়ান ব্রিউস্টার কাহলে বলেন, “এই প্রচেষ্টা হতে পারে একটি বড় উদ্যোগের অংশবিশেষ, যাতে ডিজিটাল বইয়ের তথ্যসূত্র এক সাইট থেকে অন্যটিতে ব্যবহার করা যায়। শতাব্দীকাল ধরে বইয়ের জ্ঞানসমূহ ডিজিটাল পাঠকদের কাছে পৌছে দেয়া একটি বড় দায়িত্ব। আমরা আশা করছি বিদ্যমান ইন্টারনেট ব্যবস্থার মাধ্যমে পাঠকদেরকে এসব বই পড়তে দেয়ার সুযোগ তৈরি করতে পারবো, তবে এটি শুরু হচ্ছে উইকিপিডিয়ার মাধ্যমে।”

আমরা তথ্যের জন্য উইকিপিডিয়া ব্যবহার করলেও এটি মূলত তথ্যসূত্রের একটি বিশাল সংগ্রহশালা। যেমন মার্কিন গৃহযুদ্ধ সম্পর্কিত নিবন্ধটি মূলত বিভিন্ন বই থেকে গৃহীত তথ্যপঞ্জি। প্রথাগত পাঠাগার দারুন কাজের জিনিস হলেও সবার তাতে প্রবেশাধিকার নেই। একজন ছাত্র ইন্টারনেট আর্কাইভের ব্যাপারে তার মন্তব্যে বলেছে, ছাত্ররা মূলত প্রাথমিক তথ্যের জন্য উইকিপিডিয়া ব্যবহার করে। তবে আরো গভীর তথ্য ও জ্ঞানের জন্যে ইবুক লিঙ্কের সংগ্রহশালা ব্যবহারের সহজ সুযোগ থাকলে তা সবার জন্য দারুন কাজে দেবে। 

আগামী কয়েক বছরের মধ্যে আর্কাইভে ৪ মিলিয়ন বইয়ের ডিজিটাল অনুলিপি যুক্ত করা হবে বলে জানিয়েছে ইন্টারনেট আর্কাইভ।

Translate »
Share This