ছবি: ভিক্টর গ্রিগাস/সিসি-বাই-এসএ ৪.০

একটা সময় ছিল, যখন বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়েও অধিকাংশ অধ্যাপক উইকিপিডিয়া ব্যবহার না করার জন্য বলতেন। শ্রেণিকক্ষেই নিষেধ করা হত উইকিপিডিয়ার ব্যবহার। উইকিপিডিয়ায় যে-কেউ লিখতে পারেন, কোনো পণ্ডিত সেই লেখা ঠিক আছে কিনা তা যাচাইও করেন না। তাহলে কিভাবে এমন একটা বিশ্বকোষকে গ্রহণ করা সম্ভব?

কিন্তু ধীরে ধীরে অধ্যাপকেরা বুঝতে পারেন, উইকিপিডিয়া নিজস্ব বাস্তুতন্ত্রের মাধ্যমে নির্ভরযোগ্য তথ্যের অসাধারণ এক উৎস হয়ে উঠেছে, তা মোটেও ফেলনা কোনো বিষয় না এবং সারাবিশ্বের মানুষ একে অত্যন্ত আন্তরিকভাবে গ্রহণ করে ফেলেছে বিশ্বস্ত তথ্যের উৎস হিসেবে। তখন তারা চিন্তা করলেন এর উন্নতি নিয়ে, কিভাবে উইকিপিডিয়াকে আরো গ্রহণযোগ্য করে তোলা যায়।

এবং এরপরেই ঘটল সবচেয়ে চমকপ্রদ ঘটনাটি। একাডেমিয়া জগতে যারা উইকির প্রতি মুখ ঘুরিয়ে থাকতেন, তারাই পরবর্তীতে চালু করলেন “উইকিপিডিয়ান-ইন-রেসিডেন্স” তথা আবাসিক উইকিপিডিয়ান প্রকল্প। যিনি উইকিপিডিয়ান-ইন-রেসিডেন্স হবেন, তিনি বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে শিক্ষার্থীদের আরো গভীরভাবে উইকিপিডিয়া সম্পর্কে জানাবেন, কিভাবে এখানে অবদান রাখা যায়।

উইকিপিডিয়ান-ইন-রেসিডেন্স স্কোপ ডায়াগ্রাম (পিকেএম, সিসি বাই এসএ ৩.০)।

কিভাবে এর মাধ্যমে আরো ব্যাপকভাবে উপকৃত হওয়া যায়। ধীরে ধীরে কানাডার বেশকিছু বিশ্ববিদ্যালয়ে এই চাকুরির সুযোগ শুরু হল। ২০১৮ খ্রিষ্টাব্দে ইউনিভার্সিটি অব টরেন্টো, এবং গত গ্রীষ্মে মন্ট্রিলের কনকর্ডিয়া বিশ্ববিদ্যালয় চালু করে উইকিপিডিয়ান-ইন-রেসিডেন্স প্রকল্প।

বিশ্ববিদ্যালয় আনুষ্ঠানিকভাবে এই ঘোষণা দেওয়ার আগ পর্যন্ত পুরো ব্যাপারটাকে মানুষ হাস্যকর, অবাস্তব ব্যাপার হিসেবে চিন্তা করত বলে জানান অ্যাম্বার বার্সন, যিনি কনকর্ডিয়াতে আবাসিক উইকিপিডিয়ান হিসেবে কর্মরত আছেন। তিনি নিজে পিএইচ.ডি.র শিক্ষার্থী এবং শিল্প+নারীবাদ প্রকল্পের কানাডীয় সমন্বয়ক।

বার্সনের কাজ শুধু বিশ্ববিদ্যালয় সম্পর্কিত নিবন্ধের উন্নয়নই নয়, বরং তিনি অন্যান্য আগ্রহী শিক্ষার্থীরাও যেন কার্যকরভাবে উইকিপিডিয়া ব্যবহার করতে পারেন, অবদান রাখতে পারেন ইত্যাদি নিয়েও কাজ করছেন তিনি। এই ওয়েবসাইটে বিদ্যামান নারী-পুরুষ বৈষম্য নিয়ে জানান তিনি।

২০১৮ খ্রিষ্টাব্দে ওয়াটারলু বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ডোনা স্ট্রিকল্যান্ড নোবেল পুরস্কার লাভ করেন। এর আগ পর্যন্ত তাঁর নামে উইকিপিডিয়ার কোনো নিবন্ধ ছিল না, এমনকি তাঁর কাজকে অনুল্লেখযোগ্য মনে করে এক মডারেটর সেই কাজকে বাতিল করে দিয়েছিলেন। পক্ষান্তরে তাঁর পুরুষ সহকর্মী জেরার মুরু সম্পর্কে ২০০৫ খ্রিষ্টাব্দ থেকেই উইকিপিডিয়ায় নিবন্ধ ছিল, যিনি একইসাথে নোবেল লাভ করেন।

এমনও হয়েছে, ইতিহাসের একদল শিক্ষার্থী দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের কোনো একটা নিবন্ধে যতই অবদান রাখত, অন্য এক অভিজ্ঞ উইকিপিডিয়ান সেটা মুছে দিত। যদিও এই অভিজ্ঞ উইকিপিডিয়ান ইতিহাস সম্পর্কে তেমন জানতেন না, তবুও তিনি অভিজ্ঞ হওয়ায় এই কাজ করতে পেরেছিলেন।

এভাবে আবাসিক উইকিপিডিয়ান প্রকল্পের মাধ্যমে উইকিপিডিয়ার অন্ধকার দিকগুলোও উঠে আসে। আবাসিক উইকিপিডিয়ান প্রকল্পের মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা উইকিপিডিয়ায় অবদান রাখতে রাখতে এটাও উপলব্ধি করেন যে, জ্ঞান কতটা স্পর্শকাতর হতে পারে। সবদিক দিয়েই জ্ঞানের বাস্তব অংশটা তাদের কাছে এসে ধরা দেয়।

Translate »
Share This